শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:১৫ অপরাহ্ন

আশা জাগিয়েও হেরে গেল টাইগাররা

রিপোর্টারের নাম / ১৪ বার
আপডেট সময় শুক্রবার, ১৯ নভেম্বর, ২০২১, ১২:০২ অপরাহ্ন

ক্রিড়া ডেস্কঃ মিরপুরে সিজিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশকে হারিয়েছে পাকিস্তান। ৬ উইকেট হারিয়ে ১৩২ রান করে ৪ উইকেটে জয় পেয়েছে পাকিস্তান।

সফররতদের ১২৮ রানের টার্গেট দিয়েছে স্বাগতিকরা। আগে ব্যাট করে ৭ উইকেট হারিয়ে ১২৭ রান সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ। ২০ বলে ১ চার ও ২ ছক্কায় তিনি অপরাজিত ৩০ রান করেন। আর তাসকিন আহমেদ শেষ বলে হ্যারিস রউফকে স্কয়ার লেগ দিয়ে উড়িয়ে মেরে ইনিংস শেষ করেন।

১২৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নামেন পাকিস্তানের দুই ওপেনার বাবর আজম ও মোহাম্মদ রিজওয়ান। প্রথম ওভারে মাত্র ৪ দেন স্পিনার মেহেদী হাসান। তৃতীয় ওভারে আসেন মোস্তাফিজুর রহমান। নিজের প্রথম ওভারেই উইকেট পেলেন কাটার মাষ্টার। তার দ্রুতগতির বল বুঝতেই পারেননি রিজওয়ান। ১১ বলে ১১ রান করে সাজঘরে ফিরেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান।

রিজওয়ানের পর ফিরলেন আরেক পাকিস্তানি ওপেনার বাবর আজম। তাসকিন আহমেদের করা চতুর্থ ওভারের শেষ বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন ৮ রান করা পাকিস্তানি অধিনায়ক।

দুই পেসার তাসকিন ও মোস্তাফিজের পর উইকেট পেয়েছেন স্পিনার মেহেদী হাসান। ম্যাচের পঞ্চম ওভারে মেহেদীর বলে বলে সুইপ করতে গিয়ে বল ব্যাটে লাগাতে পারেননি হায়দার আলী। শূন্যরানে এলবিডব্লিউ হয়ে রিভিও নিয়েও বাঁচতে পারেননি তিনি। এরপর ষষ্ঠতম ওভারে অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান শোয়েব মালিক উইকেটরক্ষক সোহানের দুর্দান্ত থ্রোতে রান আউট হন। তিনিও কোন রান করতে পারেননি।

পাওয়ার প্লেতে ৪ উইকেট হারানোর পর পাকিস্তানের ইনিংসকে সামাল দেন ফখর জামান ও খুশদিল শাহ। পঞ্চম উইকেটে ৫৬ রানের জুটি গড়ে বিদায় নিয়েছেন ফখর জামান। ১৫তম ওভারে তাসকিনের করা দ্বিতীয় বলে ৩৪ রান করে আউট হন ফখর।

সেই ফাখর জামানকে অবশেষে উইকেটের পেছনে নুরুল হাসানের হাতে ক্যাচ দিতে বাধ্য করেন তাসকিন আহমেদ। আউট সুইঙ্গার বলটি ফাখর জামানের ব্যাটে লেগে চলে যায় সোহানের হাতে। ৩৬ বলে খেলা ৩৪ রানের ইনিংসটির সমাপ্তি ঘটে সেখানে।

এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ১৬.৫ ওভারে পাকিস্তানের সংগ্রহ ৬ উইকেটে ৯৬ রান।

পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বাংলাদেশের অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। বাংলাদেশের একাদশে এসেছেন নাজমুল শান্ত, আমিনুল ইসলাম বিপ্লব। টি-টোয়েন্টি অভিষেক হয়েছে সাইফ হাসানের।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভরাডুবির পর নতুনদের নিয়ে নতুন শুরু করেছে বাংলাদেশ। তবে পাকিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম ম্যাচেও ভালো শুরু পেলো না বাংলাদেশ। নতুন ওপেনার সাইফ হাসানের সঙ্গে উদ্বোধনী জুটি বড় করতে পারেননি নাঈম। দ্বিতীয় ওভারে হাসান আলীর প্রথম বলে রিজওয়ানের তালুবন্দী হন তিনি। ফেরার আগে টাইগার ওপেনারের ব্যাট থেকে আসে ১ রান।

সাইফ হাসানের অভিষেকটা লম্বা হয়নি বেশি। তৃতীয় ওভারের শেষ বলে মোহাম্মদ ওয়াসিমের ডেলিভারিতে উইকেটের পেছনে ধরা পড়েন এই ওপেনার। তার ব্যাট থেকে আসে ১ রান। উইকেটের মিছিল যেন থামছেই না। সাইফ ও নাঈমের পর সাজঘরে ফিরেছেন নাজমুলও। পঞ্চম ওভারে মোহাম্মদ ওয়াসিমকে মারতে গিয়ে কট অ্যান্ড বোল্ড হন তিনি। টাইগারদের আরো হতাশ করে ফেরার আগে শান্তর ব্যাট থেকে আসে ১৪ বলে ৭ রান। বিশ্বকাপের ব্যর্থতা দেশেও টেনে এনেছে বাংলাদেশ। পাকিস্তানের বিপক্ষে পাওয়ারপ্লেতে তিন উইকেট হারিয়ে মাত্র ২৫ রান তুলেছে টাইগাররা।

তিন উইকেট হারিয়ে পাকিস্তানের বোলিংয়ের কাছে ধুঁকতে থাকা বাংলাদেশ ভরসা খুঁজছিল মাহমুদউল্লাহর ব্যাটে। কিন্তু টাইগার অধিনায়ককে মাত্র ৬ রানেই থামিয়ে দিলেন মোহাম্মদ নওয়াজ। টাইগারদের ব্যাটিং ব্যর্থতার দিনে একা লড়াই করছিলেন আফিফ হোসেন। তবে ইনিংস বড় করার আগে ৩৪ বলে ৩৬ রান করে বিদায় নেন তিনি। শাদাব খানের গুগলিতে স্টাম্পড হন আফিফ।

আফিফের মতোই আশা জাগিয়ে ফিরলেন নুরুলও। ১৭তম ওভারে হাসান আলীকে এনে নুরুলকে ফেরালো পাকিস্তান। হাসান আলীর বলে উইকেটকিপারের হাতে ক্যাচ দিয়ে ২২ বলে ২ ছক্কায় ২৮ রান করেন নুরুল।

১৮তম ওভারে এসে ১০০ রান পার হলো বাংলাদেশের। হ্যারিসের করা ওভারের পঞ্চম বলে এক রান নেন ক্রিজে নতুন ব্যাটসম্যান আমিনুল, তাতেই বাংলাদেশের হলো ১০০।

আগের ওভারে নুরুলকে ফেরানো হাসান আলীকে ওভারের প্রথম বলে বিশাল ছক্কা মেরেছেন মেহেদী হাসান। ওভারের চতুর্থ বলে আমিনুলকে বোল্ড করেন হাসান আলী। ৫ বল খেলে ২ রান করে হাসান আলীকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে বোল্ড হয়ে যান তিনি।

শেষ দিকে দলের হাল ধরেন মেহেদী হাসান। ২০ বলে ১ চার ও ২ ছক্কায় তিনি অপরাজিত ৩০ রান করেন। আর শেষ বলে হ্যারিস রউফকে ছক্কা মেরে দলীয় স্কোর ১২৭ রানে নিয়ে যান তাসকিন।

বিশ্বকাপের হতাশা ভুলে পাকিস্তানের বিপক্ষে জয়ে ফিরতে চায় টাইগাররা। সাকিব-মুশফিকের শূন্যতায় নড়বড়ে ব্যাটিং লাইন নিয়ে মাঠে নেমেছে টাইগাররা। তবে সাম্প্রতিক পারফর্ম বিবেচনায় বাংলাদেশের চেয়ে বাবর আজম বাহিনী এগিয়ে থাকলেও হোম অব ক্রিকেটের অতীত রেকর্ড কথা বলছে টাইগারদের হয়েই।

বাংলাদেশ আজ খেলছে লেগস্পিনার আমিনুল ইসলাম ও তিন পেসার তাসকিন, মোস্তাফিজুর ও শরিফুলকে নিয়ে। অন্যদিকে পাকিস্তানের একাদশে নেই শাহীন শাহ আফ্রিদি।

বাংলাদেশ একাদশ:
মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), নাঈম শেখ, সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন, আফিফ হোসেন, নুরুল হাসান, শরীফুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ, মেহেদী হাসান, আমিনুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান।

পাকিস্তান একাদশ:
বাবর আজম (অধিনায়ক), মোহাম্মদ রিজওয়ান, ফখর জামান, হায়দার আলী, শোয়েব মালিক, শাদাব খান, খুশদিল শাহ, মোহাম্মদ নওয়াজ, হাসান আলী, মোহাম্মদ ওয়াসিম জুনিয়র, হারিস রউফ। সূত্র: বিডি২৪ লাইভ





আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিস্তারিত




Theme Created By ThemesDealer.Com