শনিবার, ২৩ অক্টোবর ২০২১, ১০:৩৫ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক বাতেনের অপসারণ দাবিতে আবারও আন্দোলন ২০ হাজার টাকা বেতনে চালডালে চাকরি যশোরে ফেসবুকে ধর্মীয় উসকানিমূলক পোস্ট দেয়ায় যুবক গ্রেফতার বিশুদ্ধ আত্মা নিয়ে আমার কাছে এসো: পরীমণি বিএনপির বক্তব্যে মনে হয় কুমিল্লার ঘটনা তারাই ভালো জানে: তথ্যমন্ত্রী প্রতিমন্ত্রী ও উপজেলা চেয়ারম্যানের তিস্তা নদীর ভাঙন এলাকা পরিদর্শন ও ত্রাণ বিতরণ আ’লীগের সা: সম্পাদক মফিজুরের ২নং ঘিবায় নির্বাচনী জনসভা সাম্প্রদায়িক হামলার বিচার হবে ট্রাইব্যুনালে: আইনমন্ত্রী সিরাজদিখানে আনিসুর রহমান রিয়াদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত নোয়াখালীতে সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে গণঅনশন ও বিক্ষোভ

চাঁপাইনবাবগঞ্জে বারোমাসি নতুন জাতের আমের সন্ধান

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি / ১১২ বার
আপডেট সময় বুধবার, ১১ আগস্ট, ২০২১

সিফাতুল্লাঃ বারোমাসি নতুন জাতের আম ‘স্যান্ডির’ দেখা মিলেছে আমের রাজধানী খ্যাত চাঁপাইনবাবগঞ্জের গোমস্তাপুর উপজেলার রাধানগর ইউনিয়নের রোকনপুর গ্রামে। এই আমগাছের বৈশিষ্ট হচ্ছে বছরের প্রতিদিনই গাছগুলোতে মুকুলের দেখা মেলে। বাজারে আমের সময়ে যে সমস্ত জাতের আম পাওয়া যায় সে আমগুলোর স্বাদের দিক দিয়ে এর স্বাদ অনন্য। কিন্তু একটা নির্দিষ্ট সময়েই এ আম পাওয়া যায়। তবে এর ফলন খুব বেশি। এর প্রধান বৈশিষ্ট্য হচ্ছে একসাথে গাছে আমফল ও মুকুল ধরে।

গোমস্তাপুর উপজেলার রাধানগর ইউনিয়নের রোকনপুর গ্রামের আমচাষী নাজমুল হক জানান, প্রায় ১০ বছর আগে তার এক আত্মীয়ের মাধ্যমে বিদেশি জাতের এ গাছের চারা পাওয়া গিয়েছিল এবং কয়েক একর জমিতে আমবাগান ও নার্সারী করে আমফল বিক্রি ছাড়াও গাছের চারা তৈরী একটি চারা ৫’শ টাকা দরে বিক্রি করছেন। নিজে এই আমের জাতের নাম না জানলেও স্থানীয় কৃষি বিভাগ আমের নাম স্যান্ডি বলে জানিয়েছে।

গাছগুলোর বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, প্রতিদিনই মুকুল ফুটে আর একটি থোকায় অনেকগুলো আম আসে, আমের ভেতর আঁশ নেই, খেতে খুবই সুস্বাদু ও মিষ্টি। এর ওজন প্রায় ৫’শ থেকে সাড়ে ৬’শ গ্রাম পর্যন্ত হয়ে থাকে। আমের আবরণ খুব পাতলা এবং আমের রং হলদে হলে খাওয়ার উপযোগী হয়ে উঠে। তিনি আরো বলেন, আমগুলো পরিপক্কতা পেতে ক্ষিরসাপাত ও গোপালভোগ আমের মত সময় লাগে।

এ প্রসঙ্গে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা সীমা কর্মকার জানান, কৃষক নাজমুল হকের বাগানে যে আমগুলো রয়েছে তার বৈশিষ্ট হচ্ছে একটা থোকায় লিচুর মতো অনেকগুলো আম ধরে। আর প্রতিদিনই মুকুল আসে। একটি মুকুল ভেঙ্গে ফেললে সেটি আবার হয়।

এদিকে জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম জানান, পাশ্ববর্তী দেশ ভারত থেকে আমচাষী নাজমুল হক পরীক্ষামূলকভাবে গাছের চারাটি রোপণ করে ভাল সাড়া পেয়েছেন। আমের ফলন ও পারিপার্শ্বিকতা বিবেচনা করে স্থানীয়ভাবে এ আমের নাম দেয়া হয়েছে স্যান্ডি। আমচাষীরা এ জাতের আম চাষ করলে আশানুরুপ ফল পাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন।





আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিস্তারিত




Theme Created By ThemesDealer.Com