রবিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২১, ১২:২৯ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক বাতেনের অপসারণ দাবিতে আবারও আন্দোলন ২০ হাজার টাকা বেতনে চালডালে চাকরি যশোরে ফেসবুকে ধর্মীয় উসকানিমূলক পোস্ট দেয়ায় যুবক গ্রেফতার বিশুদ্ধ আত্মা নিয়ে আমার কাছে এসো: পরীমণি বিএনপির বক্তব্যে মনে হয় কুমিল্লার ঘটনা তারাই ভালো জানে: তথ্যমন্ত্রী প্রতিমন্ত্রী ও উপজেলা চেয়ারম্যানের তিস্তা নদীর ভাঙন এলাকা পরিদর্শন ও ত্রাণ বিতরণ আ’লীগের সা: সম্পাদক মফিজুরের ২নং ঘিবায় নির্বাচনী জনসভা সাম্প্রদায়িক হামলার বিচার হবে ট্রাইব্যুনালে: আইনমন্ত্রী সিরাজদিখানে আনিসুর রহমান রিয়াদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত নোয়াখালীতে সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে গণঅনশন ও বিক্ষোভ

বিশ্বনাথে দপ্তরীদের কর্মঘন্টা নির্ধারনের দাবীতে বিভিন্ন দপ্তরে স্মারকলিপি

রিপোর্টারের নাম / ২৬ বার
আপডেট সময় সোমবার, ১১ অক্টোবর, ২০২১

ফারুক আহমদ
স্টাফ রিপোর্টার

সিলেটের বিশ্বনাথ উপজেলার বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিজ্যালয়ের আউটসোর্সিং-এর মাধ্যমে নিয়োগ প্রাপ্ত প্রায় অর্ধ শতাধিক দপ্তরি কাম নৈশ প্রহরী হাই কোর্টের রায় অনুযায়ী কর্ম ঘন্টা নির্ধারণ ও ছুটি প্রাপ্তিসহ বিভিন্ন দাবিতে আজ রোববার (১০ অক্টোবর) বিকাল ৩ ঘটিকায় সিলেটের বিশ্বনাথে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম নুনু মিয়া, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও পৌর প্রশাসক সুমন চন্দ্র দাশ’র বরাবরে লিখিত স্মারক লিপি প্রদান করেন।

এসময় দপ্তরী কাম প্রহরীরা বলেন- আমরা আমাদের নির্দিষ্ট একটি পদ চাই এবং এই পদের দায়িত্বসহ সময় সীমা নির্ধারণ অর্থাৎ আমাদের কর্মঘণ্টা নির্ধারণ চাই। যদিও আমাদের অনেক সহকর্মী আদালতে রিট করে পক্ষে রায় পেয়েছি। কিন্তু মহামান্য হাইকোর্টের রায় এখনো কার্যকর কেনো হয়নি।
আমরা দ্রুত এর সমাধান চাই। আমরা কোন ছুটি ভোগ করতে পারি না অথচ আমাদের ছুটি ভোগ করার অধিকার রয়েছে।
তাদের এই নায্য অধিকার আদায়ের পক্ষে প্রযোজনীয় কাগজপত্র সংযুক্ত করে এই স্মারক লিপি প্রদান করা হয়।

উল্লেখ্য: ২০১৩ ইং থেকে এ যাবৎ বাংলাদেশের সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দফায় দফায় প্রায় ৩৭ হাজার দপ্তরী কাম প্রহরী পদে আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে জনবল নিয়োগ করা হয়। কিন্তু তাদের দাবী অনুযায়ী কাজের নির্দিষ্ট কোন সময়সীমা নেই। নেই কোন নৈমিত্তিক ছুটির সুযোগ। অথচ তারা ২০১৩ সাল থেকেই ২৪ ঘন্টা বিদ্যালয়ে দায়ীত্ব পালন করে আসছেন।
পৃথিবীর বুকে একজন মানুষ দিয়ে ২৪ ঘন্টা খাটানোর নজির এটাই মনে হয় বাংলাদেশে প্রথম।





আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিস্তারিত




Theme Created By ThemesDealer.Com