রবিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:০১ অপরাহ্ন

বিশ্বনাথে বিরোধের জেরে পড়া হয়নি জুম্মার নামাজ: হামলায় আহত ২ জন

রিপোর্টারের নাম / ২৩ বার
আপডেট সময় শনিবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২১

ফারুক আহমদ
স্টাফ রিপোর্টার

সিলেটের বিশ্বনাথে জুম্মার নামাজ পড়তে মসজিদে যাওয়ার পথে জায়গা সক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় দুই জন আহত হওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার সরুয়ালা বেখারগাঁও গ্রামে এঘটনা ঘটে। এ ঘটনার কারণে গ্রামের জামে মসজিদে মুসল্লীগণ জুম্মার নামাজ পড়তে পারেননি।

হামলায় আহতরা হলেন উপজেলার সরুয়ালা গ্রামের মৃত সমছু মিয়ার পুত্র জুয়েল আহমদ (৪০), ও তার বাড়ির কাজের লোক সুনামগঞ্জ জেলার দোয়ারাবাজার উপজেলার শ্রীপুর গ্রামের মৃত জাহির আলীর পুত্র আফিজ আলী (৫০)।

খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মনির হোসেন নামের এক অভিযুক্তকে আটক করে থানা পুলিশ। তিনি সরুয়ালা গ্রামের মৃত ওয়াজিদ আলীর পুত্র।

এ ঘটনায় আহত জুয়েল আহমদের ভাতিজা কমরু মিয়া বাদী হয়ে মনির হোসেনসহ ৭ জনকে অভিযুক্ত করে বিশ্বনাথ থানায় মামলা দায়ের করেছেন। (মামলা নং ৫, তাং-১০-০৯-২০২১ইং)।

মামলায় অন্যান্য অভিযুক্তরা হলেন উপজেলার সরুয়ালা গ্রামের মৃত ওয়াজিদ আলীর পুত্র আনহার আলী, আব্দুল মালিক উরফে হুশিয়ার আলী, তার পুত্র রাজা মিয়া, মৃত বশির মিয়ার পুত্র আতিক মিয়া, তার পুত্র কামরান আহমদ ও মৃত আনছার আলীর স্ত্রী জরিনা বেগম। এছাড়া আরও ৩জন অজ্ঞাতনামা অভিযুক্ত করা হয়েছে।

অভিযোগ পত্রে কমরু মিয়া উল্লেখ করেন, অভিযুক্ত মনির হোসেন গংদের সাথে জায়াগা জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ ও মামলা মোকদ্দমা চলে আসছে।
কমরু মিয়া ও তার চাচা জুয়েল আহমদ আজ শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে জুম্মার নামাজ আদায় করতে গ্রামের মসজিদে যাওয়ার পথে মসজিদের গেইটের সমানে তাদের উপর অভিযুক্তরা পূর্ব বিরোধের জের ধরে আক্রমণ করেন।
এসময় কমরু মিয়া আত্মরক্ষার্থে দৌড় দিয়ে মসজিদের ভিতরে প্রবেশ করে ভিতর থেকে দরজা বন্ধ করে রাখেন।
তখন অভিযুক্তরা জুয়েল আহমদ ও তার সঙ্গে থাকা বাড়ির কাজের লোক আফিজ আলীর উপর হামলা করে তাদেরকে গুরুত্বর আহত করে।

খবর পেয়ে বিশ্বনাথ থানার এসএই আফতাবউজ্জামান রিগ্যানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে মসজিদের ভিতরে আটকে থাকা কমরু মিয়াকে উদ্ধার করে এবং আহতরদেরকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। এদিকে এঘটনার কারণে গ্রামের জামে মসজিদে জুম্মার নামাজের জামাত পড়া সম্ভব হয়নি বলে জানান কমরু মিয়া।

মামলা দায়েরের সত্যতা নিশ্চিত করে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইন-চার্জ (ওসি) গাজী আতাউর রহমান বলেন, অভিযুক্ত মনির হোসেন নামের একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। শনিবার তাকে আদালতে প্রেরণ করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিস্তারিত
Theme Created By ThemesDealer.Com