মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২:০২ পূর্বাহ্ন
শিরোনামঃ
সিলেটের পি.পি নওশাদ আহমদের সহধর্মিনীর রোগমুক্তি কামনায় মিলাদ ও দোয়া মাহফিল ইছাপুরা ইউনিয়ন পরিষদে বিট পুলিশিং সভা অনুষ্ঠিত বিশ্বনাথে ক্যান্সারে আক্রান্তের চিকিৎসা সহায়তা প্রদান করলেন প্রবাসী রাসেল আহমদ বিশ্বনাথে উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের প্রতিবাদ ও বিক্ষোভ সমাবেশ নোয়াখালীতে সেটেলমেন্ট অফিসারের ২৩ বছরের কারাদণ্ড শাহজাদপুরে সৌর বিদ্যুৎ চালিত সেচ প্রকল্প বাস্তবায়নে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত সিরাজদিখানে অবৈধ ড্রেজারে পাইপ অপসারণ রাজাপুরে স্কুলের আর্থিক অনিয়মের প্রতিবাদে ও জমি রক্ষার দাবিতে মানববন্ধন পাহাড়পুর বিষপাড়ায় পানিতে ডুবে- ডেড় বছর বয়সী শিশুর মর্মান্তিক মিত্যু ঝালকাঠিতে ১৬৯টি পূঁজা মন্ডপে প্রতিমা তৈরির কাজে কারিগররা ব্যস্ত

বৃদ্ধা মাকে বাঁচাতে গিয়ে ছোট ভাইয়ের আঘাতে জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে বড় ভাই

রিপোর্টারের নাম / ৩৬ বার
আপডেট সময় শনিবার, ১১ সেপ্টেম্বর, ২০২১

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি!!!

মুন্সিগঞ্জের টঙ্গিবাড়ী উপজেলার খলাগাঁও গ্রামে মাকে বাঁচাতে গিয়ে ছোট ভাইয়ের আঘাতে জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছে বড় ভাই।

শনিবার সকালে উপজেলার পাঁচগাও ইউনিয়নের খলাগাঁও গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে,খলাগাঁও গ্রামের মৃত ইসলাম হালদারের স্ত্রী বৃদ্ধা নাজমা বেগম (৭৫) দীর্ঘদিন যাবত স্বামীর বাড়িতে তিন সন্তান নিয়ে বসবাস করে আসছেন।

নাজমা বেগম জানান, বড় ছেলে জাকির হালদার (৫০),মেঝো ছেলে বশির হালদার (৪৫) আমার ভরণ পোষণ করে থাকেন। কিন্তু ছোট ছেলে অলি হালদার (৩৫) আমার ভরণ পোষণ করে না। সে আমার ভরণ পোষণ না করে প্রায়শই আমাকে বকাঝকা ও মারধোর করে।

এর ধারাবাহিকতায় আজ শনিবার সকালে আমার ছোট ছেলে অলি ও তার স্ত্রী নুপুর পুনরায় জগড়ায় লিপ্ত হয়ে আমাকে মারতে আসে। আমাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে আমার বড় ছেলে জাকির হালদার ও বশির হালদারকে চাইনিজ কুড়াল, দা ও কাঠের ডাঁসা দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করে।

পরে স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে প্রথমে টঙ্গিবাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখান থেকে তারা আশংকাজনক অবস্থায় আহত বশিরকে মুন্সিগঞ্জ সদর হাসপাতালে পাঠালে সেখানকার কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

মুঠোফোনে নাজমা বেগমের বড় ছেলে জাকির হালদার জানান, আমার ছোট ভাই ও তার স্ত্রীর মারধোরে আমার মেঝো ভাই এখন জীবন মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে আছে। আমরা তাকে নিয়ে এখন ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি আছি।

নাম প্রকাশে অনুচ্ছুক তাদের কয়েক জন প্রতিবেশি জানান, অলি হালদার একজন খারাপ প্রকৃতির লোক। সে প্রায়ই তার মাকে খারাপ ভাষায় গালিগালাজ করে এবং মারধোর করে।

বৃদ্ধা নাজমা বেগম কান্না জড়িত কন্ঠে সাংবাদিকদের জানান, আমি আমার ছোট সন্তানের যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ। তার ভয়ে আমি বাড়িতে থাকতে পারিনা।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত অলি হালদারের বাড়িতে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি।

এ বিষয়ে টঙ্গিবাড়ী থানার এস আই মামুন জানান, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।





আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিস্তারিত




Theme Created By ThemesDealer.Com