শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:৫৮ অপরাহ্ন

খাগড়াছড়ির  আম্রপালি আমের বাজার জাতে সরকারি সহযোগীতা জরুরি

মাসুদ রানা জয়,খাগড়াছড়ি / ২২৩ বার
আপডেট সময় রবিবার, ৬ জুন, ২০২১, ৩:২৫ অপরাহ্ন

মাসুদ রানা জয়,খাগড়াছড়ি :

সুস্বাদু খাগড়াছড়ির  আম্রপালি এখন বাজারজুড়ে। পাকা পাকা মিষ্টি আম্রপালি। হাতেই নিলেই ঘ্রাণ যেন নাকে এসে লাগে। দামও বেশ হাতের নাগালে। তবে এতো গুণের মাঝেও নেই খাগড়াছড়ির আম্রপালির বাজারজাতকরণে সরকারি কিংবা বড় ধরণের পৃষ্ঠপোষকতা-কথাটি এভাবেই বলেছেন খাগড়াছড়ির আম্রপালি চাষিরা।
তাদের ভাষ্য, সরকার রাজশাহীর আম বাজারজাতকরণে নানামুখী পদক্ষেপ নিয়েছে। অথচ খাগড়াছড়ি আম্রপালির জন্য বিখ্যাত হওয়ার পরও এই অঞ্চলের কৃষকদের উন্নতির জন্য নেই কোনো উদ্যোগ।
রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জকে আমের রাজধানী বলা হলেও আম্রপালি আমের রাজ্য হিসেবে মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে শুরু করেছে পাহাড়ি জেলা খাগড়াছড়ি। খাগড়াছড়ির সুমিষ্ট আম্রপালির পরিচিতি এখন দেশজুড়ে।
স্থানীয় বাজারে ভালো মানের আম কেজি প্রতি ১০০ থেকে ১২০ টাকায়, দ্বিতীয় ক্যাটাগরির আম ৭০ থেকে ৮০ টাকায় এবং শেষ দিকে কেজি প্রতি ৫০ থেকে ৬০ টাকা দরে বিক্রি করা হয়ে থাকে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় আম চাষিরা।
গত কয়েক বছরে ফল বিপর্যয়ের মুখে পড়া আম্রপালির এ বছর বাম্পার ফলনের কথা জানিয়েছেন আম চাষিরা। তাদের মতে বিগত বছরের তুলনায় এ বছর প্রায় দুই গুণ বেশি আম উৎপাদন হবে বলে আশা করছেন। আবহাওয়া অনকূলে থাকায় আম্রপালির হাসিতে হাসবেন খাগড়াছড়ির আম চাষিরা।
খাগড়াছড়ি জেলা কৃষি বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, দুই বছর আগেও খাগড়াছড়িতে প্রায় তিন হাজার হেক্টর জমিতে আম্রপালির চাষ হয়েছে। যা থেকে প্রায় ৩৫ থেকে ৪০ হাজার মেট্রিক টন আম্রপালির উৎপাদন করা হয়েছে। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি।
বাণিজ্যিকভাবে আম চাষে সাফল্য পাওয়া খাগড়াছড়ির চাষি অনিমেষ চাকমা রিংকু জানান, তিনি জেলা সদরের তেতুলতলা এলাকায় প্রায় ১০ হেক্টর জমিতে আম্রপালির চাষ করেছেন। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এ বছর আমের বাম্পার ফলন হয়েছে। চলতি বছর তার বাগানে ৭০ থেকে ৮০ মেট্রিক টন আম পাওয়া যাবে বলেও মনে করছেন তিনি।
অন্যদিকে গুইমারা উপজেলার জালিয়াপাড়ায় ৫ হেক্টর জমিতে আম্রপালির চাষ করেছেন মো. শাহাজ উদ্দিন। তিনি বলেন, গত বছরের তুলনায় এ বছর দিগুণ ফল হয়েছে।
তিনি বলেন, এ বছর কৃষকের মুখে হাসি ফুটিয়েছে আম্রপালি। তার মতে আম্রপালি আম সুস্বাদু হওয়ায় ঢাকাসহ সারাদেশে এ আমের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে।
এ বছর আমের ভালো ফলনের বিষয়টি নিশ্চিত করে খাগড়াছড়ি জেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা মো. সফর উদ্দিন জানান, চলতি সপ্তাহ থেকে বাজারে আম্রপালি বিক্রি শুরু হবে। তিনি বলেন, পাহাড়ের মাটি এবং আবহাওয়ার ওপর নির্ভর করেই এই প্রজাতির আম প্রচলন করে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট।





আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

বিস্তারিত




Theme Created By ThemesDealer.Com